মেয়ে (পাত্রী) দেখার ক্ষেত্রে শরীয়তের দিকনির্দেশনা:

ফতোয়া নং: ১০/২০০১

বরাবর,
কেন্দ্রীয় দারুল ইফতা ,
শায়খ যাকারিয়া ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার

বিষয় : বিবাহের উদ্দেশ্যে মেয়ে দেখা প্রসঙ্গে

মুফতি সাহেব আমরা সাধারণত বিবাহের উদ্দেশ্যে প্রথমত যে কাজটি করি তা হচ্ছে, মেয়ে দেখা। আমরা মেয়ের সংবাদ পেলে প্রথমত মেয়ে দেখি তারপর বাকি কথা বলা হয়। প্রশ্ন হলো: সর্বপ্রথম কোন খবর না নিয়ে কেবল মেয়ে দেখে আসা বৈধ কিনা? কেউ যদি সত্যিকারের পরিশুদ্ধ মন নিয়ে এমন কাজ করে তাহলে সেও কি অপরাধী হবে? কখনো পাত্র-পাত্রীকে আলাদা করে নির্জনে সময় দেয়া হয় নিজেদের ব্যাপারে জানতে এটা কি বৈধ? মেয়ে (পাত্রী) দেখার ক্ষেত্রে শরীয়তের দিকনির্দেশনা জানালে উপকৃত হব।

নিবেদক
আহসান হাবিব

الجواب باسم ملهم الصدق والصواب.

শরয়ী দৃষ্টিতে পাত্রের জন্য বিবাহ করার পূর্ণ ইচ্ছার শর্তে প্রয়োজন অনুপাতে এমন পাত্রীকে দেখা বৈধ যার সাথে বিবাহ হওয়ার সমূহ সম্ভাবনা আছে। কারণ বিবাহ হওয়ার সম্ভাবনা না থাকলে তা বিবাহের নিয়তে দেখার অন্তর্ভুক্ত গণ্য হয় না, অবশ্য সরাসরি মেয়ে না দেখে অন্যান্য বিষয় যেমন: বংশ, ঘর-বাড়ি, ফ্যামিলি স্ট্যাটাস, ধন-সম্পদ ইত্যাদি বিষয়গুলি যাচাই করে তারপর মেয়ে দেখাই উত্তম ও সর্তকতা।

পাশাপাশি গাইরে মাহরাম মহিলার সাথে নির্জন কোন স্থানে অবস্থান করা জায়েজ নেই। এ ব্যাপারে হাদীসে নিষেধাজ্ঞা এসেছে! তাই পাত্রীর সাথে পাত্রের নির্জন অবস্থানে কথাবার্তা বলা ইসলাম সমর্থন করে না; বরং পাত্রের কোন মাহরাম মহিলা বা পাত্রীর কোন মাহরাম পুরুষ থাকা আবশ্যক।

الأدلة الشرعية

رد المحتار: 9/611(الأزهر)

ولو أراد ان يتزوج امرأة فلا بأس ان ينظر إليها،  وإن خاف ان يشتهيها لقوله عليه الصلاة والسلام للمغيرة بن شعبة حين خطب امرأة: ((انظر إليها فإنه أحرى أن يؤدم بينكما)) رواه الترميزي والنسائي وغيرهما، ولأن المقصود إقامة السنة لا قضاء الشهوة.

  وفيه أيضا: 4/76( الأزهر)

 قوله: ( والنظر إليها قبله) أي: وإن خاف الشهوة كما صرحوا به في الحظر والإباحة، وهذا إذا علم أنه يجاب في نكاحها.

فتاوى قاضيخان: 3/310(قديمي كتب خانه)

 وإذا أراد الرجل أن يتزوج امرأة،  فله أن ينظر إلى وجهها.  فإن كان بحال يشتهي إذا نظر إلي وجهها أو أكبر رأيه أنه يشتهي فلا بأس بأن ينظر إلى وجهها مكشوفا.

الفقه الحنفي: 2/56 (،دار القلم)

 ولا يجوز أن يخلو الخاطب بالمخطوبة فينفرد بها في بيت واحد أو يصطحبها إلى أماكن النزهة لأن الشرع لم يرد بغير النظر والخاطب أجنبي عن المراة المخطوبة ولا يجوز الخلوة بالمراة لقول رسول الله صلى الله عليه وسلم ((لا يخلون أحدكم بامرأة إلا مع ذي  محرم.

 اپ کے مسائل اور ان کا حل: 6/ 85(مکتبہ لدھیانوی)

جواب: جس عورت سے نکاح کرنےکا ارادہ ہو اسے ایک نظر دیکھ لینا جائز ہے ، خواہ خود دیکھ لے یا کسی معتمد عورت کے ذریعے اطمنان کرلے اسے زیادہ  تعلقات کی نکاح سے قبل اجازت نہیں ، نہ مل جل کی اجازت ہے نہ بات چیت کی اور نہ خلوت و تنہائی کی . نکاح سے قبل ملنا جلنا بجائے خود غیر اخلاقی حرکت ہے .

والله اعلم بالصواب

كتبه
افسر الدین
المتمرن بدار الإفتاء والإرشاد المركزية
بمركز الشيخ زكريا للبحوث الإسلامیة داكا
22/7/١٤٤٢ ھ
শেয়ার করুন

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *