মারকাযের সংক্ষিপ্ত পরিচিতি

মারকাযের সংক্ষিপ্ত পরিচিতি
নাম. মারকাযুশ শাইখ যাকারিয়া লিল বুহুসিল ইসলামিয়া
(শাইখ যাকারিয়া ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার) ঢাকা- বাংলাদেশ।
একটি উচ্চতর গবেষণামূলক ইসলামী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।
প্রতিষ্ঠাকাল: ২০১০ সাল মোতাবেক ১৪৩১ হি.
লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য
ঐতিহ্যবাহী দরসে নেযামীর পাশাপাশি যুগোপযোগী আধুনিক ও আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন সিলেবাসের অনুসরণে ইলম আমলের সমন্বয়ের মধ্য দিয়ে আল্লাহ ওয়ালা, দ্বীনদার ইসলামী আইন ও হাদিস বিশারদ তৈরী করা এবং তাদের মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী ইসলাম ও মুসলমানদের দ্বীনি প্রয়োজন পূরণের সর্বাত্বক চেষ্টার মাধ্যমে আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জন করা।

কর্মসূচি

♦তা’লীম ♦তারবিয়ত ♦তাযকিয়া ♦ইসলাহ ♦তাবলীগ।

মারকাযের কর্মধারা
এখানে থেকে ছাত্ররা ইসলামী ফিকাহ, হাদীস ও তাফসীর বিষয়ে উচ্চতর(পি এইচ ডি) ডিগ্রী লাভ করে। মুরুব্বিদের পরামর্শ ও ছাত্রদের আগ্রহের কারণে দরসিয়াতের দুটি ক্লাশ, মিশকাত (¯œাতক) ও দাওরায়ে হাদীস (মাস্টার্স) রাখা হয়েছে। নিয়মতান্ত্রিক শিক্ষা ব্যবস্থার পাশাপাশি ছাত্রদেরকে ধর্মীয় আদর্শে- আদর্শ নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার জন্য বিভিন্ন প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা রয়েছে। এ ছাড়াও সর্ব সাধারনের দ্বীনি খিদমাত আঞ্জাম দেয়ার লক্ষ্যে মারকাযের পক্ষ থেকে বিভিন্ন সেবামূলক কাজের উদ্যোগ গ্রহন করা হয়। এসব লক্ষ্য অর্জনে মারকাযে বর্তমানে তিনটি প্ররিকল্পনা রয়েছে।
১. শিক্ষা প্ররিকল্পনা।
২। প্রশিক্ষণ প্ররিকল্পনা।
৩ সেবা প্ররিকল্পনা।

মারকাযের শিক্ষা কার্যক্রম
এ কার্যক্রমে মোট ছয়টি বিভাগ রয়েছে।
১. হিফয বিভাগ।
২. উলূমুল কুরআন (তাফসীর) বিভাগ।
৩. উচ্চতর ইসলামী ফিকাহ ও আইন বিভাগ।
৪. উচ্চতর হাদীস গবেষণা বিভাগ।
৫. আরবি সাহিত্য (আদব) বিভাগ।
৬. মিশকাত ও দাওরায়ে হাদীস।

প্রশিক্ষণ প্রকল্প
ক) একটি উচ্চমানের দারুল মুতালাআ (পাঠাগার)- এর ব্যবস্থা রয়েছে।
খ) বক্তৃতা প্রশিক্ষণ।
গ) নামায ও কিরাত প্রশিক্ষণ।
বিশেষ কোর্স ঃ- ইসলামী আকীদাগুলো জানা আর ভ্রান্তমতবাদ খন্ডনের উপর প্রশিক্ষণ সময়ের দাবি। এ দাবি পূরণের লক্ষ্যে বসরের বিভিন্ন সময়ে বিশেষ করে রমযানে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়।

ইংরেজী প্রশিক্ষণ কোর্স ঃ- সময়ের চাহিদা ও দ্বীনের দাওয়াতের ব্যাপকতার দিক লক্ষ্য করে উচ্চতর গবেষণা বিভাগে অধ্যয়ণরত শিক্ষার্থীদেরকে একজন অভিজ্ঞ শিক্ষকের মাধ্যমে বিশেষ কারিকুলামে ইংরেজী ভাষার উপর দক্ষ করে তোলা হয়।

ফিকহী মজলিস ঃ-
ঢালাও ভাবে অধ্যয়ন করে যাওয়া আর সন্নিবেশিতাকারে অধ্যয়নের মাঝে রয়েছে বিশেষ ফারাক। অনুরূপ কিতাব বুঝা সহজ তবে তা যুগীয় মাসআলার সাথে সামঞ্জস্য করা কঠিন। এ দুটি দূর্বলতাকে দূরীকরণের লক্ষ্যে মারকাযের মুহতারাম মুদির মুুফতি মিযানুর রহমান সাঈদ দা. বা. বিভিন্ন আধুনিক ও জরুরী মাসআলার উপর মুহাযারায়ে আম্মাহ (বিষয় ভিত্তিক সারগর্ভ আলোচনা) প্রদান করেন।

মারকাযের সেবামূলক কার্যক্রম ঃ-

ফাতওয়া বিভাগ ঃ- এ বিভাগে নি¤েœাক্ত পদ্ধতিতে সেবা প্রদান করা হয়।
ক) সাধারণ বিভাগঃ- জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে আলোচিত আধুনিক ও সমসাময়িক মুসলিম উম্মাহর জটিল সমস্যাবলীর মৌখিক ও লিখিত সমাধান ও ফাতওয়া প্রদানই এর মূল লক্ষ্য।
খ) ঙহ ষরহব সার্ভিস ঃ- ঙহষরহব এ ফাতওয়া প্রদানের আধুনিক পদ্ধতি গ্রহনের কাজও এগিয়ে চলছে। ♦ঊ-সধরষ ♦ওহঃবৎহবঃ ♦ডবনংরঃব এর মাধ্যমে যে কোন বিষয়ে জ্ঞান আহরণ ও প্রশ্নের জবাবসহ বিভিন্ন কার্যক্রম চালু রয়েছে।
যুগশ্রেষ্ঠ ফকীহ, শাইখুল ইসলাম আল্লামা তকী উসমানী দা. বা. এর সার্বিক দিকনির্দেশনায় এ বিভাগটির আরো উন্নতির প্রচেষ্টা চলছে ।
গ) ফারায়েয (মৃতের সম্পদ বন্টন) বিভাগ ঃ- এ বিভাগে মৃত ব্যক্তির স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি ওয়ারিসদের মধ্যে ইসলামী শরীয়ার বিধান মোতাবেক সুষ্ট বন্টনের রূপরেখা বর্ণনা করা হয়।
ঘ) দাওয়াত ও তাবলীগ বিভাগ ঃ- সাধারণ জনগনের বিশাল চাহিদা ও ছাত্রদের আমলি উন্নতির লক্ষ্যে তাবলীগ জামাআতের কাজেরও আঞ্জাম দেয়া হয়। উস্তাদদের বিশেষ নেগরানীতে ২৪ ঘন্টার জামাআতসহ বিভিন্ন তাবলীগি নেসাব পূর্ণ করা হয়। এভাবে মারকায দাওয়াত ও তাবলীগের মহান কাজ আঞ্জাম দিয়ে চলছে।
ঙ) মজলিসে দাওয়াতুল হক ঃ-ইসলাহি ও তাযকিয়া কার্যক্রমের সার্বাঙ্গীন সফলতার জন্য মারকাযের মুদির শাহ আবরারুল হক রহ. এর অন্যতম খলীফা মিযানুর রহমান সাঈদ দা. বা. মারকায মিলনায়তনে ইসলাহি বয়ান করে থাকেন। যাতে সাধারণ শিক্ষিতদের পাশাপাশি অনেক আলেমগনও অংশগ্রহন করেন।
চ) রচনা ও প্রকাশনা বিভাগ ঃ- মারকায দ্বীনের প্রতিটি ক্ষেত্রেই যোগ্য সৈনিক তৈরীর খিদমত আঞ্জামের উদ্যোগ গ্রহন করেছে। আর তা সফলতার জন্যই গড়ে তোলা হয়েছে রচনা ও প্রকাশনা বিভাগ। এ বিভাগের উদ্যোগে সাহিত্যচর্চার মাধ্যমে ইসলামী সাহিত্যগুলোকে সরব করার প্রচেষ্টা চলছে। পাশাপাশি বাতিল প্রতিরোধের বিভিন্ন বিষয়ে উচ্চতর গবেষণা বিভাগের ছাত্রদের মাধ্যমে প্রবন্ধ তৈরী করে তা পুস্তকাকারে সাধারণ জনগনের মাঝে ছড়িয়ে দেয়ার কার্যক্রম চলছে।

প্রতিষ্ঠানের প্রয়োজনীয় প্রকল্পসমূহ ঃ-
১. উচ্চতর গবেষনা বিভাগে অধ্যায়নরত ছাত্রদের গবেষণার জন্য মনোরম গ্রন্থাগার,
২. স্বাস্থ্যসম্মত ছাত্রাবাস,
৩.ঙহষরহব এ ফাতওয়া আদান-প্রদান ও দ্বীনি দাওয়াতি কার্যক্রম মিডিয়াতে
সম্প্রচারের সুবিধার্থে কম্পিউটার ও ল্যাপটপ এর ব্যবস্থা করা।
৪.বিশেষভাবে মারকাযের এ বিশাল ভবিষ্যত পরিকল্পনা বাস্তবায়নের সুবিধার্থে স্থায়ী একটি জায়গার ব্যবস্থা করা।
৫. পাশাপাশি আমলি উন্নতি অর্জনের জন্য একটি বিশাল মসজিদ নির্মাণের ব্যবস্থা গ্রহন।

প্রতিষ্ঠানের ব্যয় নির্বাহ পদ্ধতি

সম্পূর্ণ বেসরকারি এ প্রতিষ্ঠানে আয়ের স্থায়ী কোন উৎস নেই। সকল কার্যক্রম দ্বীনদরদী মুসলমান ভাইদের সেচ্ছায় প্রদত্ত অনুদান ও দোয়ার মাধ্যমেই পরিচালিত হয়। যেহেতু প্রতিষ্ঠানটি একেবারেই নতুন তাই ছাত্রদের প্রয়োজনীয় কিতাবাদি সংগ্রহ, কর্তব্যরত শিক্ষক ও কর্মচারীদের বেতন ভাতা, অধ্যয়নরত গরীব ছাত্রদের ভরণ-পোষণ, প্রশস্ত স্থায়ী জায়গা সংগ্রহ বাবদ খরচ ও অপরাপর প্রয়োজনীয় প্রকল্পসমূহ বাস্তবায়নে কোন ধর্মপ্রাণ মুসলমান ভাই যাকাত ও সাদকার অর্থ সঠিকভাবে ব্যয় করার উপযুক্ত স্থান মনে করে স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহনের ইচ্ছা পোষণ করলে নি¤েœাক্ত ঠিকানায় যোগাযোগ করতে পারেন।

শাইখ যাকারিয়া ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার ঢাকা, বাংলাদেশ।
আল-হেরা টাওয়ার ক-৮৬/১-এ কুড়িল কুড়াতলী, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯।
ফোনঃ ০০৮৮০২-৮৪১৩৯৬৪
মোবাইলঃ ০১৮১৯২৫১০৭০- ব্যাংক হিসাব নং- ১২১৭
ইসলামী ব্যাংক বারিধারা শাখা।