জুমার বয়ান মিম্বারে বসে করবে? নাকি অন্যত্র?

ফতোয়া নং: ১০/১৯৭০

বরাবর,
কেন্দ্রীয় দারুল ইফতা,
শাইখ যাকারিয়া ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার, ঢাকা, বাংলাদেশ।
বিষয়: জুমার বয়ান প্রসঙ্গে
মুহতারাম মুফতি সাহেব! আমাদের গ্রামের জামে মসজিদে জুমার দিন খুতবার পূর্বে মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে বয়ান করার সময় খতিব সাহেব মিম্বরে না বসে আলাদা চেয়ারে বসে নসিহত করে থাকেন। গত (১২ই রবিউল আওয়াল) জুমাতে খতিব সাহেব পূর্বের ন্যায় চেয়ারে বসে বয়ান করার কিছুক্ষণ পূর্বে হঠাৎ এক ব্যক্তি এসে তাকে বাধা দেয়। বাধা দানকারী ব্যক্তি বলে মিম্বর থাকতে চেয়ারে বসে বয়ান করা যাবে না। এই বলে সে চেয়ারটি মসজিদের বাহিরে নিয়ে যায়।
মুহতারাম মুফতি সাহেবের নিকট আমার জানার বিষয় হলো-খুতবার পূর্বে চেয়ারে বসে বয়ান করা যাবে কিনা: নাকি মিম্বাবে বসে বয়ান করতে হবে। কুরআন হাদীস তথা শরীয়তের উপযুক্ত বয়ান দিয়ে বিস্তারিত জানানোর অনুরোধ রইলো।

নিবেদক
মুফতি মুস্তাফিজুর রহমান
সাথিয়া, পাবনা

الجواب باسم ملهم الصدق والصواب

শরয়ি দৃষ্টিতে জুমআর দিন নামাযের খুতবা দেয়া সুন্নাতে মুতাওয়ারিসা। যা রাসূল সা. থেকে নিয়ে এ পর্যন্ত বিদ্যমান। তাই জুমআর খুতবা মিম্বারে দেওয়াই বিধিবদ্ধ। আর খুতবার আগে পরে খুতবার তরজমা বা স্বতন্ত্র বয়ান মিম্বারে বসে করার ক্ষেত্রে যেহেতু শরীয়তে কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই। তাই খুতবার পূর্বের বয়ান মিম্বারে বসেও করা যেতে পারে। তবে ফুকাহায়ে কেরাম বলেছেন, যেহেতু জুমআর দিন নামাযের পূর্বে বিধিবদ্ধ খুতবা মিম্বারে দেওয়া হয়। তাই অন্য বয়ান মিম্বারের পরিবর্তে অন্য কোন চেয়ার ইত্যাদিতে বসে করা উত্তম; যাতে করে তা জুমআর খুতবার সাথে সাদৃশ্য না হয়ে যায়।
সুতরাং প্রশ্নোক্ত সুরতে মিম্বারের পরিবর্তে চেয়ারে বসে বয়ান করা শুধু বৈধ নয়; বরং উত্তমও বটে। তবে মিম্বারে বসে বয়ান করাও বৈধ আছে।

الأدلۃ الشرعيۃ

صحیح مسلم: رقم الحدیث: 885

عن جابر بن عبد الله قال سمعته يقول ان النبي صلى الله عليه وسلم قام يوم الفطر فصلى فبدا بالصلاة قبل الخطبة ثم خطب الناس فلما فرغ نبى الله صلى الله عليه وسلم نزل واتى النساء فذكرهن

الفتاوی الھندیۃ: 1/208 (زکریا)

ومن السنة أن يكون الخطيب على منبر اقتداء برسول الله صلى الله عليه وسلم .

جواہر الفقہ: 2/524 (دار العلوم کراچی)

            البتہ خطبہ عیدین وغیرہ میں اگر خطبہ کےبعد  ہی ترجمہ سنا دیا جائے تو مضائقہ نہیں اور اس میں بھی  بہتر یہ ہے کہ ممبر سے علیحدہ  ہوکر ترجمہ سنا دیں، تاکہ امتیاز ہو جائے۔

فتاوی قاسمیہ: 9/414 (اشرافی)

            الجواب:  جمعہ کے دین اذان اول کے بعد اذان ثانی سے پہلے اردو میں وعظ و نصیحت کرنا شرعا جائز ہے، لیکن بہتر یہ ہے   کہ یہ وعظ و نصیحت ممبر پر بیٹھنے کے بجائے الگ کرسی وغیرہ پر ہو تاکہ خطبہ  کی مشابہت لازم نہ آئے۔

والله أعلم بالصواب

كتبه
محمد اللہ 
المتمرن بدار الإفتاء والإرشاد المركزية
بمركز الشيخ زكريا للبحوث الإسلامیة داكا
25/٥/١٤٤٢ ھ
শেয়ার করুন

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *