ইতিকাফের সংজ্ঞা, ফযিলত, প্রকারভেদ ও শর্ত

ইতিকাফ
ইতিকাফ এর আভিধানিক অর্থ হলো- (اللبث) বা অবস্থান করা।
পারিভাষিক অর্থ : اللَّبْثُ فِي الْمَسْجِدِ مَعَ نِيَّةِ الِاعْتِكَافِ ইতিকাফের নিয়তে মসজিদে অবস্থান করা। (হিন্দিয়া:১/২৭৪)

ইতিকাফের ফযিলত
ইতিকাফ মহান একটি ইবাদত। রাসূল সা. ইতিকাফের ব্যাপারে খুব গুরুত্বারোপ করেছেন। ইমাম যুহরী রহ. বলেন, রাসূল সা. এমন অনেক কাজ করতেন যেগুলো তিনি মাঝে মধ্যে ছেড়েও দিতেন। কিন্তু রাসূল সা. মদীনায় আসার পর মৃত্যুর আগ পর্যন্ত ইতিকাফ ছাড়েননি। দুঃখের বিষয় হলো মানুষ এটার পাবন্দি করে না। ইতিকাফকারী সম্পর্কে রাসূল সা. ইরশাদ করেন-
عَنِ ابْنِ عَبَّاسٍ، أَنَّ رَسُولَ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ قَالَ فِي الْمُعْتَكِفِ ্রهُوَ يَعْكِفُ الذُّنُوبَ، وَيُجْرَى لَهُ مِنَ الْحَسَنَاتِ كَعَامِلِ الْحَسَنَاتِ كُلِّهَاগ্ধ (سنن ابن ماجه: ২/১২৬،رقم: ১৭৮১)
অর্থাৎ ইতিকাফকারী গোনাহ থেকে বেঁচে থাকে। তার জন্য পূণ্য অর্জনকারীর সমপরিমাণ পুণ্য লেখা হয়।
অন্যত্র বর্ণিত হয়েছে-
أَنَّ رَسُولَ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ قَالَ: ্রاعْتِكَافُ عَشْرٍ فِي رَمَضَانَ كَحَجَّتَيْنِ وَعُمْرَتَيْنِ (السراج المنير: ১/২২০)
অর্থাৎ রমযানের শেষ দশকের ইতিকাফ (সাওয়াবের দিক দিয়ে) দুই হজ ও দুই ওমরার সমান।

ইতিকাফের প্রকারভেদ
ইতিকাফ তিন প্রকার-
১. ওয়াজিব ইতিকাফ: যদি কেউ ইতিকাফের মান্নত করে তাহলে উক্ত ব্যক্তির উপর ইতিকাফ ওয়াজিব। চাই মান্নতটি কোনো শর্তের সাথে সম্পৃক্ত হোক বা না হোক।
২. সুন্নাত ইতিকাফ: রমযানের শেষ দশকের ইতিকাফ হলো সুন্নাত ইতিকাফ।
৩. মুস্তাহাব ইতিকাফ: ইতিকাফের নিয়তে মসজিদে অবস্থান করা। চাই তা সুন্নাতের জন্যই হোক ।
প্রথম দুই প্রকারের জন্য রোযা শর্ত হলেও মুস্তাহাব ইতিকাফের জন্য রোযা শর্ত নয়। (খুলাসাতুল ফতোয়া: ১/২৬৭)

ইতিকাফের শর্ত সমূহ
১. নিয়ত করা: নিয়ত ব্যতীত ইতিকাফ সর্বসম্মতিক্রমে অবৈধ ।
২. মসজিদে ইতিকাফ করা:যে মসজিদে আযান ও ইকামত হয় সে মসজিদে ইতিকাফ করা যাবে। এটা হলো পুরুষের ক্ষেত্রে। আর মহিলারা ঘরের নামাযের স্থানে ইতিকাফ করবে। তবে মসজিদে ইতিকাফ করলে তা বৈধ হলেও মাকরূহ। যদি ঘরে নামাযের নির্ধারিত স্থান না থাকে, তখন একটি স্থানকে নামাযের জন্য নির্ধারণ করে সেখানে ইতিকাফ করবে। (হিন্দিয়া:১/২৭৬)
৩. রোযা রাখা: রোযা ওয়াজিব ও সুন্নাত ইতিকাফের জন্য শর্ত। মুস্তাহাব ইতিকাফের জন্য শর্ত নয়। (রদ্দুল মুহতার- ৩/৪৩১)
৪. মুসলমান হওয়া: কেননা, কাফের ইবাদতের যোগ্য নয়।
৫. জ্ঞান সম্পন্ন হওয়া: কেননা, পাগল নিয়তের যোগ্য নয়।
৬ নাজাসাত থেকে পবিত্র হওয়া: কেননা, নাপাকি নিয়ে মসজিদে প্রবেশ করা নিষেধ।
৭ ইতিকাফ করার জন্য বালেগ হওয়া শর্ত নয়। (হিন্দিয়া: ১/২৭৬)

শেয়ার করুন

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *